বৃহস্পতিবার, ১৭ Jun ২০২১, ১১:৫৬ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
স্বর্ণ জয়ী মারজানের টিউশন ফি নিবে না জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

স্বর্ণ জয়ী মারজানের টিউশন ফি নিবে না জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

বিজ্ঞাপন

জয় ডেক্স : সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসের ১৩ তম আসরে বাংলাদেশের হয়ে কারাতে ইভেন্টে স্বর্ণ এনে দিয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী মারজান প্রিয়া। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ মারজান প্রিয়াকে সব ধরনের টিউশন ফি ছাড়াই পড়ার সুযোগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। গত মঙ্গলবার ৬ষ্ঠ আন্তবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেন উপাচার্য।

উপাচার্য বলেন, যুদ্ধ জেতার জন্য অস্ত্রশস্ত্র নয়, কৌশল প্রয়োজন, কৌশল থাকলে যেকোনও যুদ্ধ জেতা যায়। মারজান তার বড় উদাহরণ। এ সময় উপাচার্য মারজানকে ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, মারজান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় আসার সুযোগ করে দিয়েছে।

উপাচার্য আরও বলেন, মারজান আমাদের গর্ব। এখন থেকে মারজানকে বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনও টাকা দেওয়া লাগবে না। সম্পূর্ণ টিউশন ফি ছাড়াই সে পড়াশোনা করবে। আমরা খুব শিগগিরই বড় পরিসরে মারজানকে বিশ্ববিদ্যালয়ে সংবর্ধনা দেবো।

এর আগে মারজানকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান উপাচার্য, ট্রেজারার ড. কামাল উদ্দিন আহম্মেদ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়া উপ-কমিটি। মারজানকে মিষ্টিমুখ করান । গত রোববার পিতাকে নিয়ে এসেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। স্বর্ণজয়ী মারজানা আক্তার ও তাঁর পিতাকে শুভেচ্ছা জানাতে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে গুলিস্থান থেকে ঘোড়ার গাড়িতে করে ক্যাম্পাসে নিয়ে আসা হয়। ক্যাম্পাসের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশের সময় তাকে ফুলের মালা পড়িয়ে ও করতালির মাধ্যমে অভিনন্দন জানিয়ে বরণ করে নেয়। শিক্ষার্থীরা স্লোগান দিতে থাকে ‘জগন্নাথের গর্ব’, ‘বাংলাদেশের গর্ব’, ‘স্বর্ণকণ্যা মারাজানা’। ঘোড়ার গাড়িতে করেই পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে মারজানা ও তাঁর বাবা।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ক্যম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে মারজানা পিতাকে সঙ্গে নিয়ে নিজের অধ্যায়নরত চারুকলা বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে  সাক্ষাৎ করতে যান। বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরাও তাঁকে ফুলের মালা পড়িয়ে এবং মিষ্টিমুখ করিয়ে অভিনন্দন জানান। অনুষ্ঠান শেষে মারজান বলেন, ভবিষ্যতে আরও ভালো কিছু করতে চাই, অলিম্পিক এর মত ইভেন্টে অংশগ্রহন করে বাংলাদেশের হয়ে যেন স্বর্ণ জয় করতে চাই। প্রিয় শিক্ষক, ক্যাম্পাসের বন্ধু, বড় ভাই-বোনরা যখন শুভেচ্ছা জানাচ্ছিলো তখন রক্তে হিম ধরে চোখ-মুখ খুশিতে স্বচ্ছল করছিলে। মারজানা আক্তারের পিতা মোঃ নুরুজ্জামান   বলেন, আমার মেয়ে ছোটবেলা থেকেই খেলাধুলার প্রতি অনেক আগ্রহী ছিল। তার এই অর্জনে বাবা হিসেবে আমি অনেক গর্ব বোধকরি। আমার মেয়ে যেন দেশের নাম আরো উজ্বল করতে পারে এজন্য সবার কাছে দোয়া চাই।

এসময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কাছে তাঁর মেয়ের জন্য সহযোগিতা কামনা করেন। চারুকলা বিভাগের চেয়ারম্যান আলপ্তগীন বলেন, মারজানা আমাদের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গর্ব, বাংলাদেশের গর্ব। তাঁর জন্য জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশকে সকলে আর একবার জেনেছে। আমরা তাঁর সাফল্যর জন্য বিভাগ থেকে সকল সহযোগীতা করবো। উল্লেখ্য, নেপালের কাঠমান্ডুর সাতদাবাতোর ইন্টারন্যাশনাল স্পোর্টস কমপ্লেক্সে এসএ গেমসে মেয়েদের কারাতে ইভেন্টে স্বর্ণ জিতেন মারজান প্রিয়া।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

সূত্র : সকালের সময়

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »