বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ১০:১৭ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
বাবরি মসজিদ ভেঙে অনুতাপে হলেন মুসলমান, বানালেন ৯০টি মসজিদ

বাবরি মসজিদ ভেঙে অনুতাপে হলেন মুসলমান, বানালেন ৯০টি মসজিদ

জয় ডেক্স : ১৯৯২ সালে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ভাঙার ঘটনায় যে ব্যক্তি হাতে হাতুরি নিয়ে প্রথম মসজিদের গম্বুজের চূড়ায় উঠেছিলেন তিনি হলেন বলবীর সিং। তার মুসলিমদের প্রতি এতটাই ঘৃণা আর বিদ্বেষ ছিল যে, মসজিদ ভেঙে ফেলার পর একটি ইট তিনি স্মারক হিসেবে রেখে দিয়েছিলেন। সেই বলবীর সিং এখন পাক্কা একজন ধর্মপ্রাণ মুসলিম। শুধু তাই-ই নয়, কৃতকর্মে অনুতপ্ত হয়ে এ পর্যন্ত ৯০টি মসজিদ নির্মাণও করেছেন তিনি।

বাবরি মসজিদ ধ্বংসযজ্ঞের পরপরই অনুতপ্ত বোধ কাজ করতে থাকে বলবীর সিং-এর মধ্যে। ছয় মাস যেতে না যেতেই তাঁর ভেতর পরিবর্তন আসে, তখন তিনি আরেক কর সেবক (হিন্দু স্বেচ্ছাসেবী যারা মসজিদ ভাঙায় অংশ নিয়েছিলেন) যোগেন্দ্র পালকে সঙ্গে নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন তিনি। নাম বদলে বলবীর সিং হয়ে যান মোহাম্মদ আমির।

মসজিদ ভাঙ্গার ঘটনায় তিনি এতটাই অনুতপ্ত হয়েছিলেন যে, ১০০টি মসজিদ নির্মাণ করবেন বলে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হন বলবীর। বাবরি মসজিদ ভাঙার এই দীর্ঘ ২৮ বছরের মধ্যে মোহাম্মদ আমির (বলবীর) ইতিমধ্যে ৯০টি মসজিদ নির্মাণ করেছেন। এই খবর দিয়েছে তুরস্কের সংবাদ সংস্থা আনাদোলু।

মোহাম্মদ আমির আনাদোলুকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, শিব সেনার দলে যোগ দেওয়ার পর তিনি উগ্রবাদী হয়ে উঠেছিলেন। তিনি দিল্লির কাছে হরিয়ানায় রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) প্রশিক্ষণ শিবিরে ও পানিপথের কার্যক্রমে নিয়মিত অংশগ্রহণ করতেন।

মোহাম্মদ আমির বলেন, ‘মসজিদ ভেঙে ফেরার পথে সবাই আমাদের নায়কের চোখে দেখছিল, কিন্তু আমার পরিবারের প্রতিক্রিয়া ছিল পুরোপুরি ভিন্ন যা আমাকে মর্মাহত করে। পরিবারের সদস্যদের হতাশায় মসজিদ ভাঙার উল্লাস নিমিষেই দূর হয়ে যায়। আমি বুঝতে পারলাম অনেক খারাপ কিছু করে ফেলেছি। এরপর সিদ্ধান্ত নিলাম এর মাশুল আমাকেই দিতে হবে।’

বাবরি মসজিদ ভাঙ্গার দিনের কথা স্মরণ করে আমির (বলবীর) বলেন, ‘সেদিন বাড়িতে ঢুকতেই তেড়ে আসেন বাবা দৌলতরাম। বাবা আমাকে বললেন, হয় তুমি এই বাড়িতে থাকবে, না হলে আমি। তো আমিই বেরিয়ে গেলাম বাড়ি থেকে। স্ত্রীও আমার সঙ্গে এল না। থেকে গেল বাড়িতেই।’

এর কিছু দিন পর স্থানীয় আলেম মাওলানা কালেম সিদ্দিকীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং এক পর্যায়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন তিনি। সে সময় মোহাম্মদ আমির প্রতিজ্ঞা করেন, তিনি যে জঘন্য কাজ করেছেন তার মাশুল হিসেবে ১০০টি মসজিদ নির্মাণ ও সংস্কার করবেন। তারই প্রেক্ষিতে এখন পর্যন্ত ৯০টি মসজিদ নির্মাণ করেছেন, বাকি ১০টিও করার আশা রাখছেন মোহাম্মদ আমির।

উত্তর ভারতের বিভিন্ন জায়গায়, বিশেষ করে মেওয়াটে বেশ কিছু ভেঙে পড়া মসজিদ খুঁজে বের করে সেগুলির মেরামত করেছেন তিনি। উত্তরপ্রদেশের হাথরাসের কাছে মেন্ডুর মসজিদও স্থানীয় মুসলমানদের নিয়ে সংস্কার করেছেন আমির (বলবীর)ই।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

সূত্র : সকালের সময়

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »