বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫৫ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
শিরোনাম :
হামলা ও নৈরাজ্য সৃষ্টির প্রতিবাদে যশোর ঝিকরগাছায়  এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত দেশে সাম্প্রদায়িক হামলা / মামলায় ৪৫০জন গ্রেপ্তার প্রশ্নফাঁসে জড়িতদের সর্বনিম্ন ৩ এবং সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে  নির্দেশ সারাদেশে  ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে ৭ জনের মৃত্যু যশোর শিক্ষা বোর্ডের দুর্নীতি সময় চেয়েছে তদন্ত কমিটি যশোরে সামপ্রদায়িক সন্ত্রাস রুখে দেওয়ার ঘোষণা যুবলীগের যবিপ্রবিতে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসায় রোবোটিক্স প্রযুক্তি ব্যবহার শীর্ষক সেমিনার যশোর শহর যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মেহেবুব রহমান ম্যানসেলের আয়োজনে  কেক কেটে শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন পালন আজ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন
সরকারি ব্যাংকে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ এখনই বন্ধ করতে হবে: এমপি ইসরাফিল আলম

সরকারি ব্যাংকে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ এখনই বন্ধ করতে হবে: এমপি ইসরাফিল আলম

বিজ্ঞাপন

ওমর ফারুক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি: ফার্স্ট ফাইন্যান্স লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্প্রতি দায়িত্বভার গ্রহণ করেন নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য মোঃ ইসরাফিল আলম।

গত ২৯ জুন ফার্স্ট ফাইন্যান্স লিমিটেড এর ৩০৭তম পরিচালনা পর্ষদ সভায় সর্বসম্মতিক্রমে তাকে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। বাংলাদেশ জাতীয় পল্লী উন্নয়ন সমবায় ফেডারেশন’ এর পরপর তিনবার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করে আসছেন মোঃ ইসরাফিল আলম এমপি।

বাংলাদেশে টেলিভিশন টকশো’র অতি পরিচিত মুখ ও বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ভক্ত এই সাংসদ রবীন্দ্র জার্নালের সম্পাদক এবং অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ইসরাফিল আলমের পৈতৃক বাড়ী নওগাঁ জেলার রাণীনগর উপজেলার ঝিনা গ্রামে। তিনি এমবিএ এবং এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। রাজনীতির সঙ্গে সক্রিয়ভাবে যুক্ত আছেন। তৃতীয়বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করছেন।

বিভিন্ন কাজের অবদান হিসেবে ১১টি পুরস্কার ও ১৩টি সম্মাননা স্মারক অর্জন করেছেন। ব্যক্তিগত জীবনে ২ কন্যা ও ১ পুত্র সন্তানের পিতা। তার স্ত্রী ব্যাংকার হিসেবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সমাজ সেবক হিসেবেও বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজে সম্পৃক্ত থেকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন।

সম্প্রতি দেশের আর্থিক সেক্টর নিয়ে একান্ত সাক্ষাতকারে কথা বলেন মোঃ ইসরাফিল আলম এমপি বলেন আমাদের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রা উন্নত হচ্ছে এবং সামাজিক উন্নয়ন প্রতিদিন এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু এই গতিতে আমাদের আর্থিক খাতে উন্নয়ন হচ্ছে না। এসডিজিতে আছে ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন ৭০ শতাংশ করতে হবে অর্থাৎ ব্যাংকিং সেবার আওতায় এই পরিমাণ মানুষকে নিয়ে আসতে হবে।

কিন্তু অধিকাংশ আর্থিক প্রতিষ্ঠানই শহরমুখী সেবা দিচ্ছে। তাই দেশের শিক্ষিত এবং সম্পদশালী মানুষই শুধুমাত্র আর্থিক সেবা প্রতিষ্ঠান এবং ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশনের সাথে জড়িত। বিশাল জনগোষ্ঠী গ্রামে আছে যারা গরীব এবং কর্মজীবী তারা এখানে ইনক্লুটেড হচ্ছে না।

এছাড়া আরেকটি জরুরি বিষয় হলো যে, দেশের আর্থিক সেক্টরে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার ক্ষেত্রে দুর্বলতা আছে। সরকারি ব্যাংকে ঋণ খেলাপী সংস্কৃতি-ব্যাংকের টাকা ঋণ নিয়ে ফেরত না দেওয়া বা যে উদ্দেশ্যে ঋণ নেয়া হয় সেই কাজে বিনিয়োগ না করে অন্যভাবে ব্যবহার করা এবং দেশের বাইরে পাচার করা- এই কালচার খুবই খারাপ।

এই কালচারের কারণে ব্যাংকিং সেক্টরের বিশ্বাস যোগ্যতা এর স্ট্যাবিলিটি এবং এর বিকাশকে বিভিন্নভাবে বাধাগ্রস্ত করছে। সরকারি মোট আমানত তার ২৮/৩০ শতাংশ সরকারি ৬টি ব্যাংকে জমা আছে। আর ৭০/৭২ শতাংশ বাকী সবগুলো ব্যাংকে আমানত রাখা আছে। এই টাকা প্রাইভেট ব্যাংক এবং অন্য সবকিছু মিলিয়ে।

ভারতে তাদের ইকোনমির ভলিউম অনুযায়ী ব্যাংকের সংখ্যা বিচার করে মার্জার বা অ্যাকুইজিশন শুরু করেছে। আমাদের ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন হতে যাচ্ছে। সব মিলিয়ে আমাদের অর্থনীতি এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা অনুযায়ী ব্যাংকের মার্জার বা অ্যাকুইজিশন দরকার কী? এই প্রশ্নের জবাবে ইসরাফিল আলম এমপি বলেন  আমি মূল জায়গাতে ফোকাস করি। আমার আলোচনা শেষ করতে পারিনি। প্রাইভেট ব্যাংক আর পাবলিক ব্যাংক।

পাবলিক ব্যাংকগুলো অনেক সেবা দেয়। ধরেন, একটা প্রাইভেট ব্যাংক মাত্র ২০ লাখ গ্রাহক ডিল করেন। আমাদের ১৮ কোটি মানুষ। গ্রামে তাদের কয়টা ব্র্যাঞ্চ আছে?তার ক্রেডিট কার্ড কোথায় ব্যবহার হবে? কারণ আমাদের ডিজিটাল আইসিটি ইনফ্রাসট্রাকচার গ্রামে এবং সব উপজেলায় এখনো যায়নি। ৫০০ উপজেলার মধ্যে কয়টা উপজেলায় গেছে? ওই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করবে কোথায়? আরেকটা কথা- হু ইইল ইউজ দিস কার্ড? তার লেখাপড়া জানতে হবে তো?

নন ব্যাংক ফাইন্যান্সিয়াল প্রতিষ্ঠানগুলোর ইন্টারেস্ট রেট এবং নতুন উদ্যোক্তাদের বিষয়টি সাংঘর্ষিক কি না? এই প্রশ্নের জবাবে ইসরাফিল আলম এমপি আরও  বলেন আমরা ডিজিটাল ডিজিটাল বলছি, ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের কথা বলছি। কিন্তু ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের ক্ষেত্রে আমাদের সার্ভিস চার্জ এটাও কিন্তু বিবেচনায় নিতে হবে। বিকাশের কথা আমরা সবাই বলি।

১ হাজার টাকা পাঠাতে গেলে বিকাশ কতো টাকা নেয়? তাছাড়া বিকাশ তো গর্ভনিং উইথ দ্য ব্যাংক এবং অধিকাংশ সরকারি ব্যাংক। সোনালি ব্যাংক, জনতা ব্যাংক- একটা ব্যাংক যদি আশেপাশে না থাকে বিকাশ তো চলবে না? ওই ব্যাংকের সাথে তার রিলেশনশীপের প্রয়োজন আছে। তারা কিন্তু সরকারের সব ইনফ্রাসট্রাকচার ব্যবহার করছে।

সরকারের সব ধরণের সাপ্লাই চেইন ব্যবহার করছে। কিন্তু বেসরকারিখাতের মধ্যস্বত্ত্বভোগী কিছু মানুষ এখানে দাঁড়িয়ে প্ল্যাটফর্ম তৈরী করে তারা টাকা বানিয়ে দেশের ভেতরে এবং বাইরে নিয়ে যাচ্ছে। বিকাশ প্রতিদিন কতো টাকা লাভ করে? সরকারকে কতো টাকা ট্যাক্স দেয়?

আর বাইরে কতো টাকা নিয়ে যায়? ক্যালকুলেট করে দেখেন, মাথা ঘুরবে। এই জন্যে বলছি- গভর্নমেন্ট হ্যাজ টু বি এফিসিয়েন্ট টু কন্ট্রোল টু রান স্যাটেসফাইডলি। সম্পদ তো মূল্যবান নয়। একজন মানুষ, মানব সম্পদ তো বড়।

একজন বেকার ট্রেনড লাইসেন্সধারী ড্রাইভারকে যদি কার লোন দেই-সেই লোন কিন্তু মিস হবে না। একজন দক্ষ কৃষককে লোন দিলে সেই লোন ফেরত আসবেই। সেই জন্যেই সরকারি ব্যাংকে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ এখনই বন্ধ করতে হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »