সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
যশোরে কেশবপুরে নায়েব আমজাদ হোসেনের বিরুদ্ধে প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সন্মেলন

যশোরে কেশবপুরে নায়েব আমজাদ হোসেনের বিরুদ্ধে প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সন্মেলন

জয় বাংলা নিউজ প্রতিবেদক:

যশোর কেশবপুর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের আবুল কাশেম নামে এক দরিদ্র কৃষক প্রেসক্লাব যশোরে এক সংবাদ সন্মেলনে অভিযোগ করে জানান, আমজাদ হোসেন নামে এক নায়েব জোর করে তার জমিতে মার্কেট ও বিল্ডিং নির্মাণ করে চলেছে।
গতকাল সোমবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী আবুল কাশেম। তিনি ইতিমধ্যে সমস্যা গুলো বিভিন্ন সরকারি অফিস ও দপ্তরে অভিযোগ করে কোন সুফল পাননি বলে তিনি জানান। আবুল কাসেম যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত বেলায়েত গাজীর ছেলে।
অভিযুক্ত আমজাদ হোসেন কেশবপুর কাঁটাখালী ও পাঁজিয়া ইউনিয়নের সহকারী ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা (নায়েব) হিসাবে কর্মরত রয়েছেন ৬ বছর যাবত। তিনি কেশবপুর মজিদপুর ইউনিয়নের শিকারপুর গ্রামের বাসিন্দা।
ভুক্তভোগী কৃষক আবুল কাসেম অভিযোগে উল্লেখ করেন,আমার পৈত্রিক সম্পত্তি ভাইয়ে ভাইয়ে ৪০ বছর আগে বন্টনকৃত ৪৩১ খতিয়ানে ১৮১ দাগে ৪০.৫ শতক জমি আমি শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখল করে আসছি। আমার অন্যান্য ভাইয়েরা সমপরিমান জমি অন্যান্য দাগে ভোগ দখল করে আসছেন। নায়েব আমজাদ হোসেন দীর্ঘদিন ধরে অন্যান্য ভাইদের কুপরামর্শ দিয়ে আমার দখলীয় জমি তাদের কাছ থেকে দলিল করে নিয়ে মাস্তান, লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে আমাকে মেরে জোরপূর্ব দখল করে নিয়েছে। জমিতে পার্টিশান মামলা থাকা সত্ত্বেও জোরপূর্বক ঘর নির্মাণ করছে এ কর্মকর্তা।
তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন, নায়েব আমজাদ হোসেন ১৫ থেকে ১৬ বছর সামান্য বেতনে চাকুরি করেন। বসবাস করেন ৫টি প্লটে কোটি টাকার ফ্লাট বাড়িতে, গোডাউন,দোকান ঘর এবং প্রাচীর নির্মাণ করছে।
এছাড়াও পাঁজিয়া ইউনিয়নের সরকারি গেজেট ভুক্ত খাস জমি গরীবদের না দিয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে দাখিলা কেটে দিয়েছেন। তিনি অফিসে লাগামহীন দুর্নীতি করে যাচ্ছে। । তার শালক, তার সহযোগিতায় সরকারি ৫ ফুট রাস্তায় প্রাচীর দিয়ে ঘর নির্মাণ করছে। তাতে জনস্বার্থ ও জনগণের চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। একজন সরকারি কর্মকর্তা হয়েও তিনি টাকা ও ক্ষমতার জোরে এসব অনৈতিক কাজ করে চলেছে। তাঁর অত্যাচারে এলাকার সাধারণ লোকজন জর্জরিত। ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও সুফল না পেয়ে আজ সাংবাদিকদের দ্বারস্থ হয়েছেন। অভিযুক্ত নায়েক আমজাদ হোসেন মিথ্যা মামলা এবং জীবননাশের হুমকি দিচ্ছে বলে দাবি করেন আবুল কাশেম। এসব অভিযোগ করার কারণে তিনি নিরাপত্তাহীনতায়ও ভুগছেন বলেও জানান।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »