মঙ্গলবার, ২৮ Jun ২০২২, ০৬:১৭ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
তাইওয়ানের আকাশসীমায় চীনের ৩০ যুদ্ধবিমান

তাইওয়ানের আকাশসীমায় চীনের ৩০ যুদ্ধবিমান

জয় বাংলা নিউজ ডেস্ক:

তাইওয়ানের আকাশসীমায় চীনের ৩০ যুদ্ধবিমান অনুপ্রবেশ করেছে। এ অভিযোগ করেছে তাইওয়ান। এটি চলতি বছরে চীনের দ্বিতীয় বৃহৎ যুদ্ধবিমানের বহরের অনুপ্রবেশ। তাইপে বলছে, এই বহরে থাকা ৩০টি যুদ্ধবিমানের ২০টি ছিল জঙ্গিবিমান।

গতকাল সোমবার দিন শেষে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, অনুপ্রবেশকারী যুদ্ধবিমানগুলোকে সতর্ক করতে দেশটি নিজেদের যুদ্ধবিমান উড্ডয়ন করায়। চীনের সর্বশেষ কর্মকাণ্ড নজরদারি করতে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থাও মোতায়েন করে।

চীন সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নিজেদের অসন্তোষের বিষয়টি জানাতে তাইওয়ানের আকাশসীমায় যুদ্ধবিমানের বড় বহর পাঠাচ্ছে। এভাবে তাইপের পুরোনো যুদ্ধবিমানবহরকে নিয়মিতই চাপে রাখছে বেইজিং।

 

স্বশাসিত গণতান্ত্রিক তাইওয়ান চীনের অব্যাহত আগ্রাসনের হুমকির মধ্যেই বসবাস করছে। দ্বীপটিকে নিজেদের ভূখণ্ড মনে করে বেইজিং। তাইওয়ানকে কোনো এক সময় একীভূত করারও অঙ্গীকার করেছে চীন। বেইজিং এ জন্য প্রয়োজনে শক্তি প্রয়োগের কথাও বলে আসছে।

দ্বীপটিকে ঘিরে চীন উত্তেজনা বাড়াচ্ছে বলে গত সপ্তাহে অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বিশেষ করে যুদ্ধবিমানের অনুপ্রবেশের ঘটনাকে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এটাকে ‘ক্রমবর্ধমান উসকানিমূলক ভাষা ও কর্মকাণ্ডের’ উদাহরণ বলে মন্তব্য করেন।

এর আগে জাপান সফরে এক প্রশ্নের জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, চীন আক্রমণ করলে যুক্তরাষ্ট্র সামরিকভাবে তাইওয়ানকে রক্ষা করবে। তাঁর এই ঘোষণা তাইওয়ানের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের নীতি থেকে সরে আসার ইঙ্গিত। অবশ্য হস্তক্ষেপ করবে নাকি করবে না, সেই ‘কৌশলগত অস্পষ্টতার’ নীতি পরিবর্তন হয়নি বলে এর পর থেকে জোর দিয়ে আসছে হোয়াইট হাউস।

সোমবার তাইওয়ানের আকাশসীমায় চীনের যুদ্ধবিমানের অনুপ্রবেশ ছিল গত ২৩ জানুয়ারির পর সবচেয়ে বড়। ওই দিন ৩৯টি যুদ্ধবিমান তাইওয়ানের আকাশ প্রতিরক্ষা শনাক্ত অঞ্চলে (এডিআইজেড) প্রবেশ করেছিল।

তবে এডিআইজেড তাইওয়ান যেভাবে হিসাব করে, সচরাচর তেমনটি হয় না। তাইওয়ান যে আকাশসীমাকে এডিআইজডে অঞ্চল হিসেবে বিবেচনা করে, তার মধ্যে চীনের নিজস্ব এডিআইজেডের অনেক বড় একটি অংশ পড়ে। এমনকি এর মধ্যে চীনের মূল ভূখণ্ডেরও কিছু অংশ অন্তর্ভুক্ত।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেওয়া একটি উড়োজাহাজ উড্ডয়ন মানচিত্রে দেখা যায়, সরে যাওয়ার আগে এডিআইজেডের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় কোনায় ঢুকে পড়েছিল যুদ্ধবিমানগুলো।

এএফপির তথ্যভান্ডারের হিসাবমতে, গত বছর এডিআইজেডে ৯৬৯ বার চীনের যুদ্ধবিমান অনুপ্রবেশের ঘটনা নথিভুক্ত করে তাইওয়ান। ২০২০ সালে এই সংখ্যা ছিল ৩৮০ বার। চলতি বছর এখন পর্যন্ত ৪৬৫ বার অনুপ্রবেশের কথা বলা হচ্ছে, যা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৫০ শতাংশ বেশি। খবর এএফপির

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »