বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৮:২৯ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
যশোরে প্রতারণা করে টাকা আত্নসাত, চাঁদা নেয়ার অভিযোগে থানায় মামলা

যশোরে প্রতারণা করে টাকা আত্নসাত, চাঁদা নেয়ার অভিযোগে থানায় মামলা

জয় বাংলা নিউজ প্রতিবেদক:

সেনা সদস্য পরিচয় দিয়ে বিয়ের প্রস্তাব ও পরবর্তীতে প্রতারণা করে টাকা আতœসাত, চাঁদাদাবি ও চাঁদা নেয়ার অভিযোগে যশোর কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামে।
এঘটনায় ওই গ্রামের সালমা খাতুন (৩২) ৭ মে শনিবার ৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২/৩ জনকে আসামি করে মামলা করেন।
আসামিরা হলো, মনিরামপুর উপজেলার হরিদাসকাঠি গ্রামের মৃত আফসার গাজীর ছেলে মিজানুর গাজী (৪৫), একই উপজেলার চানপুর বাজার মাইঝিলি রাজগঞ্জ রোডের মৃত বসুরুল্লাহ ব্যাপারীর ছেলে ইব্রাহিম হোসেন ওরফে কালু (৪২) ও হরিদাসকাঠির মৃত মোনসেফ গাজীর ছেলে মকবুল গাজী (৪০)।
এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, সালমা খাতুন নরেন্দ্রপুর গ্রামে মামা আক্তার মাওলানার বাড়ি থাকেন। গত ১৩ জানুয়ারি বিকেলে আসামি মিজানুর গাজী ও ইব্রাহিম হোসেন কালু বন্ধু রাসেলকে বিয়ে দেবে বলে সালমাদের বাড়ি যায় ও ভালো মেয়ে আছে কিনা জিজ্ঞাসা করে। কথাবার্তার এক পর্যায়ে তারা জানায় তাদের বন্ধু সেনাবাহিনীতে চাকরি করে। বর্তমানে কক্সবাজারে আছে। সালমা তার মেয়ে খাদিজার কথা বললে আসামিরা মেয়েকে দেখতে চায় ও মেয়ে দেখে পছন্দ করে। যাওয়ার সময় মেয়ের সাথে ছবি তোলে ও যোগাযোগের জন্য সালমার মোবাইল নাম্বার নিয়ে যায়। ওই দিন সন্ধ্যায় আসামি মিজানুর গাজী সেনাবাহিনীতে চাকুরি করে নিজেকে রাসেল পরিচয় দিয়ে সালমার মোবাইলে ফোন করে তার সাথে (সালমা) ও তার স্বামীর সাথে কথা বলে। পরে ১৫ জানুয়ারি আবারো তার (সালমাকে) ফোন করে তার পিতা মাতা নেই বলে কান্নাকাটি করে। একই সাথে বলে তার চাকরির ক্ষতি হচ্ছে। এরজন্য ২ লাখ টাকা প্রয়োজন। টাকা না দিলে চাকরির ক্ষতি হবে। সালমা ও তার স্বামী সরল বিশ্বাসে মিজানুর গাজীর দেয়া মোবাইল নাম্বারে ১৭ জানুয়ারি ২২ হাজার ৫শ টাকা, ১৯ জানুয়ারি আরো একটি নাম্বারে ১১ হাজার টাকা ও বিভিন্ন সময় ১৮ হাজার টাকাসহ মোট ৫১ হাজার ৫শ টাকা নগদ ও বিকাশের মাধ্যমে প্রদান করেন।
পরবর্তীতে প্রতারণার মাধ্যমে আরো টাকা নেয়ার জন্য ২৬ জানুয়ারি বিকেলে আসামি মিজানুর গাজী সালমার বাড়ি যায়। যেয়ে বলে রাসেল তাকে পাঠিয়েছে তার আরো টাকা প্রয়োজন। সরল বিশ্বাসে সালমা ও তার স্বামী নগদ দেড় লাখ টাকা দেয়। সেনাবাহিনীতে চাকরি করে রাসেল পরিচয় দিয়ে প্রতিনিয়ত কথা বলে ও বিভিন্ন ওজুহাতে টাকা চাওয়ায় সালমার সন্দেহ হয়।
এরপর খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারেন আসামিরা প্রতারক। আসামি মিজানুর গাজী ও তার সহযোগী আসামিরা পরিচয় গোপন করেন রাসেল নাম দিয়ে তাদের সাথে প্রতারণা করে আসছে। আসামিরা বিশ্বাস ভঙ্গ করে প্রতারণার মাধ্যমে সালমাদের কাছ থেকে ২ লাখ ১৫শ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ২৬ এপ্রিল সকালে সালমা আসামি মিজানুর গাজীর কাছে টাকা ফেরত চাইলে সে বলে মেয়ের ছবি এডিটিং করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিয়ে পরিবারের মানসম্মান ক্ষুন্ন করবে ও মেয়েকে বিয়ে দিতে দেবে না বলে হুমকি দিয়ে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। পরিবারের মানসম্মান ও মেয়ের কথা চিন্তা করে সালমা ওই দিন বিকেলে আসামিদের নগদ ২৭ হাজার টাকা প্রদান করে। কিন্তু আসামিরা আরো টাকা চেয়ে সালমার পরিবারকে ক্ষয়ক্ষতিসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদান করে আসছে। এর কারনে তিনি মামলা করতে বাধ্য হন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »