মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১০:৩৭ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
শিরোনাম :
কক্সবাজার সৈকতে অর্ধ লাখ পর্যটক / বাড়ার সম্ভাবনা

কক্সবাজার সৈকতে অর্ধ লাখ পর্যটক / বাড়ার সম্ভাবনা

জয় বাংলা নিউজ প্রতিবেদক:
ঈদের ছুটিতে কক্সবাজারে সমুদ্র সৈকতে ৫০ হাজারের মতো পর্যটক ভিড় করেছেন। মঙ্গলবার (৩ মে) সমুদ্র সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্ট পর্যটকদের এই উপস্থিতি দেখা যায়। আগামীকাল বুধবার থেকে পর্যটকের সংখ্যা আরও বাড়ার সম্ভাবরা রয়েছে বলে জানা গেছে। ফেডারেশন অব ট্যুরিজম ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের ধারণা, এবারের ঈদের সাত দিনের ছুটিতে কক্সবাজারে ১০ লাখ পর্যটকের সমাগম হবে।

আজ বেলা ১১টার দিকে সমুদ্র সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্টে কয়েক হাজার পর্যটক নামেন। সিগাল, লাবণী পয়েন্টে সমাগম হয় প্রায় ১৫ হাজার পর্যটকের। আর দক্ষিণ পাশের কলাতলী পয়েন্টসহ সব মিলিয়ে চার কিলোমিটার সৈকতে প্রায় ৩০ হাজার পর্যটকের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়। বিকেলে সেই সংখ্যা বেড়ে ৫০ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছায়। এদিকে সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে সাতটি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে বসে পর্যটকের নিরাপত্তা ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন ট্যুরিস্ট পুলিশের সদস্যরা।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিম গণমাধ্যমকে জানান, ঈদের প্রথম দিনে সৈকতে নেমেছেন ৫০ হাজারের বেশি পর্যটক। সঙ্গে স্থানীয় বাসিন্দারা নেমেছেন আরও ২০-৩০ হাজার। আগামীকাল ঈদের দ্বিতীয় দিনে সৈকতে নামতে পারেন দেড় থেকে দুই লাখ পর্যটক। বিপুলসংখ্যক পর্যটকের নিরাপত্তা নিশ্চিতে দুই শতাধিক ট্যুরিস্ট পুলিশকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। সৈকতে রাত-দিন ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ।

ফেডারেশন অব ট্যুরিজম ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ঈদের সাত দিনের ছুটিতে ১০ লাখের বেশি পর্যটকের সমাগম ঘটবে কক্সবাজারে। ইতিমধ্যে পাঁচ শতাধিক হোটেল, মোটেল, গেস্টহাউসের ৯০ শতাংশ কক্ষ অগ্রিম বুকিং হয়েছে। এদিকে পর্যটকদের কাছ থেকে যেন কক্ষ ভাড়া বাবদ অতিরিক্ত টাকা আদায় না করতে পারে হোটেল মালিকরা সেজন্য ভাড়ার তালিকা টানানোর নির্দেশ দিয়েছেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ। এ ছাড়া জেলা প্রশাসনের পৃথক চারটি ভ্রাম্যমাণ আদালত তৎপর থাকবে বলেও জানান তিনি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »