মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
শিরোনাম :
ট্রেনের নিচে ঝাপিয়ে জীবম দিলেন ৪ সন্তানের জননী আগামী ২০ মে থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু অর্থের অপচয়রোধ নিশ্চিত করতে হবে… প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে ভর্তুকি মূল্যে নিত্যপণ্য বিক্রি শুরু করে টিসিবি সমুদ্রে ৬৫ দিন মৎস্য আহরণ বন্ধ সারাদেশে একদিনে আট জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি ভারতে পি কে হালদারের শাস্তি হতে পারে… পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ খাদ্যপণ্যে প্রভাব ফেলেছে…বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বড়াইগ্রামে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে র‍্যাব নাজমুলকে গ্রেফতার যৌতুক দাবি ও নির্যাতনের অভিযোগে আরআরএফ’র কর্মকর্তা সবুজের বিরুদ্ধে যশোর আদালতে মামলা
বেনাপোল পৌরসভায় প্রশাসক নিয়োগ

বেনাপোল পৌরসভায় প্রশাসক নিয়োগ

জয় বাংলা নিউজ প্রতিবেদক:
যশোরের বেনাপোল পৌরসভায় প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নারায়ন চন্দ্র পাল। গত ২৭ মার্চ মেয়র আশরাফুল আলম লিটনসহ পৌর পরিষদ বিলুপ্ত ঘোষণা করে প্রশাসক পদে তাকে নিয়োগ প্রদান করে স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ পৌর-১ শাখা প্রজ্ঞাপন জারি করে। যার স্মারক নং-৪৬,০০,০০০০,০৬৩,৯৯,০২৭,২২,৫২৭। খবরটি ছড়িয়ে পড়ার পর পৌরবাসীর মাঝে আনন্দ বিরাজ করছে।
মন্ত্রনালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৪২ এর সংশোধনক্রমে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) (সংশোধন) আইন ২০২২ এর ধারা ৯ অনুযায়ী পৌর পরিষদ বিলুপ্ত ঘোষণা করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হলো। স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ ও সংশ্লিষ্ট বিধি বিধান অনুযায়ী নিয়োগকৃত প্রশাসক পৌরসভার সার্বিক দায়িত্ব পালন করবেন।
সূত্র জানায়, ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারি বেনাপোল পৌরসভায় প্রথমবারের মতো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ভোটে আশরাফুল ইসলাম লিটন মেয়র নির্বাচিত হন। ২০১১ সালের ২০ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে বেনাপোল পৌরসভা প্রথম শ্রেণির মর্যাদা পায়। ৫ বছর পর ২০১৫ সালের ১৩ জানুয়ারি পৌরসভার মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও সীমানা সংক্রান্ত মামলায় অজুহাতে মেয়র পদটি দখলে রেখেছিলেন মেয়র আশরাফুল আলম লিটন। মামলার প্যাচে নির্বাচন আটকে থাকায় তিনি বছরের পর বছর এই সুযোগ গ্রহণ করেন।
তবে পৌর পরিষদ বিলুপ্ত ঘোষণা করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রশাসক নিয়োগ দেয়ার খবরে উপজেলা বাসীর মাঝে আনন্দ উৎসব বিরাজ করছে। কেউ কেউ মন্তব্য করেন মেয়াদ উত্তীর্ণ পৌর পরিষদের বিদায়ের মধ্য দিয়ে বেনাপোল পৌর সভা যেনো কলঙ্কমুক্ত হলো।
উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় বেনাপোল ইউনিয়নের ১১টা গ্রামের অংশ নিয়ে (৮.৬০ বর্গ মিটার আয়তনে) বেনাপোল তৃতীয় শ্রেণির পৌরসভা হিসেবে ঘোষণা হয়। ২০০৬ সালের ১৬ এপ্রিল থেকে বেনাপোল পৌরসভার প্রশাসক নিয়োগ পান বিএনপি নেতা শামছুর রহমান। সেনা সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তাকে সরিয়ে শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বশীর আহমদকে প্রশাসকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর পর্যায়ক্রমে দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ড. আব্দুল হাকিম, কামরুল আরিফ। ২০১০ সালের ১ ডিসেম্বর বেনাপোল পৌরসভাকে তৃতীয় শ্রেণি থেকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত করা হয়। এরপর ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারি প্রথমবারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। পরে ২০১১ সালের ২০ সেপ্টেম্বর বেনাপোল পৌরসভা প্রথম শ্রেণির মর্যাদা পায়।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »