সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
কৃষিতে সবুজ বিপ্লবের সূচনা করেন বঙ্গবন্ধু……………. পলক 

কৃষিতে সবুজ বিপ্লবের সূচনা করেন বঙ্গবন্ধু……………. পলক 

জয় বাংলা নিউজ ডেস্ক:
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষিতে সবুজ বিপ্লবের সূচনা করেছেন। বঙ্গবন্ধুর দর্শন অনুসরণ করেই আজ আমরা কৃষিতে সমৃদ্ধি অর্জন করেছি। শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) সিংড়া উপজেলা অডিটোরিয়ামে উপজেলার কৃষকদের মাঝে আউশ ধানের প্রণোদনার বীজ ও সার এবং ভর্তুকি মূল্যে কৃষিযন্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম এম সামিরুল ইসলাম এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়তে মাটি আর মানুষের শক্তিকে কাজে লাগানোর কথা বলেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে খাদ্য ঘাটতির দেশ আজ খাদ্য উদ্বৃত্ত দেশে পরিণত হয়েছে। দেশ আজ খাদ্যে সয়ংসম্পূর্ণ। সার, বীজ আর সেচ ব্যবস্থাকে সহজলভ্য করে দেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন শস্য উৎপাদনে নিয়মিত প্রণোদনা পাচ্ছেন দেশের ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকরা।

তিনি বলেন, কৃষিতে শ্রম সংকটের নিরসনে পঞ্চাশ শতাংশ ভর্তুকিমূল্যে হারভেস্টর, পাওয়ার থ্রেসারসহ প্রয়োজনীয় কৃষি যন্ত্র প্রদান করা হচ্ছে। নতুন নতুন প্রযুক্তি আর প্রশিক্ষণ প্রদানের ফলে কৃষির উৎপাদন বেড়েছে বহুগুণে।

পলক বলেন, এখন আর কৃষকদের সার ও ডিজেলের দাবীতে আন্দোলনে নামতে হয় না, জীবন দিতে হয় না। অথচ খালেদা জিয়ার সরকারের আমলে সারের জন্যে ১৮ জন কৃষককে জীবন দিতে হয়েছিল এবং ২০০১-২০০৬ সময়ে ওই একই সরকারের আমলে চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিদ্যুতের দাবীতে ১৪ জনকে জীবন দিতে হয়েছিল।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু দর্শন অনুসরণ করে জননেত্রী শেখ হাসিনা ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছেন। বিদ্যুতের আলোয় গ্রামগুলো জেগে উঠেছে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, সড়ক, ইন্টারনেটসহ সকল নাগরিক সুবিধা এখন গ্রামে পৌঁছে গেছে।

তিনি বলেন, ২০১০ সাল থেকে দেশে আট হাজার ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠিকে হাতের মুঠোয় ২০১টি নাগরিক সেবা প্রদান করা হচ্ছে। এসব সেন্টার থেকে ঘরে বসেই জমির পর্চা, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, এজেন্ট ব্যাংকিং, ই-কমার্স, পাসপোর্টের আবেদন করতে পারছেন তারা। এর মধ্য দিয়ে নাগরিক সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রিতা ও দূর্নীতি রোধ করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা সততা, মেধা আর সাহসিকতা দিয়ে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছেন। ১৩ বছরের পথ পরিক্রমায় মধ্যম আয়ের দেশ থেকে আমরা এখন উন্নত দেশের অভিযাত্রী। উন্নত প্রযুক্তি নির্ভর ডিজিটাল বাংলাদেশে এখন মানুষের জীবনযাত্রা অনেক সহজ, সুন্দর আর নিরাপদ হয়েছে।

পলক বলেন, সহমর্মিতা দিয়ে শেখ হাসিনা দেশের মানুষের কল্যাণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি দেশের নয় লাখ গৃহহীন পরিবারকে গৃহ নির্মাণ করে দিচ্ছেন। সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের সমৃদ্ধির জন্যে তিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাঁর আহ্বানে সাড়া দিয়ে দলের নেতা-কর্মীরাও মানুষের পাশে থাকছেন, তাদের বিপদের সঙ্গী হচ্ছেন। বিগত সময়ে আমরা কৃষকের মাঠে তাদের ধান কেটে দিয়েছি। ভবিষ্যতেও আমাদের রাজনীতি হবে মানুষের কল্যাণে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »