শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৮:০৭ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
মণিরামপুরের ইউপি চেয়ারম্যান মাজারুলসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে মামলা

মণিরামপুরের ইউপি চেয়ারম্যান মাজারুলসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে মামলা

জয় নিউজ প্রতিবেদক:
এবার চাঁদাবাজির অভিযোগে মণিরামপুরের দূর্বডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাজারুল ইসলাম গাজীসহ পাঁচজনকে আসামি করে যশোর আদালতে মামলা হয়েছে। বুধবার কেশবপুরের ডুয়াডাঙ্গা গ্রামের মুুকুন্দ মন্ডলের ছেলে গোপাল চন্দ্র মন্ডল বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মাহাদী হাসান অভিযোগের তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন।
আসামিরা হলেন, মণিরাপুরের দূর্বাডাঙ্গা গ্রামের আব্দুল হামিদ গাজী ছেলে বর্তমান চেয়ারম্যান মাজারুল ইসলাম গাজী, হরিনা গ্রামের নিতাই রায়ের ছেলে দীপক রায়, ঝিকরডাঙ্গা গ্রামেরমৃত পাগল চন্দ্র রায়ের ছেলে প্রভাস চন্দ্র রায়, কমল কান্তি রায়ের ছেলে সুধাংশু রায় ও শ্যামনগর গ্রামের অধীর বিশ্বাসে ছেলে সুবোল বিশ্বস।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, গোপাল চন্দ্র মন্ডল ২০১৭ সালে দূর্বাডাঙ্গা মৌজার নড়েল বিলের ১শ’ বিঘা জমি পাঁচ বছর মেয়াদে লিজ নিয়ে মাছ চাষ শুরু করেন। চেয়ারম্যান মাজারুল ইসলামের ইন্দনে নিউটন রায়, অলোক রায়সহ আসামিরা ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদার টাকা না দিলে ঘেরের মাছ লুট করবে বলে হুমকি দিতে থাকে আসামিরা। চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে চাঁদার টাকা না পেয়ে আসামিরা ঘেরের অফিস ঘর পুড়িয়ে দেয়। পরদিন গোপাল চন্দ্র মন্ডল জুডিসিয়াল ও নির্বাহী আদালতে আলাদা মামলা করেন। এরমাঝে চেয়ারম্যান মাজারুল ইসলাম ২৫ ফেব্রুয়ারি গোপাল চন্দ্রকে ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করায় কাছে থাকা ৫০ হাজার টাকা কেড়ে নিয়ে বাকি টাকা এক মাসের মধ্যে দেয়ার জন্য হুমকি দেয়। অন্যথায় তাকে ঘেরের ব্যবসা করতে দিবেনা বলে জানিয়ে দেয়। সর্বশেষ গত ২৭ মার্চ দুপুর ২ টার দিকে বাদী ঘেরে যায়। এসময় আসামিরা ঘেরে যেয়ে তাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করেন। টাকা দিতে অস্বীকার করলে হত্যার হুমকি দিয়ে অফিসে থাকা এক লাখ টাকা চাঁদা হিসেবে নেয়া হয়। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দিলে মামলা গ্রহণ না করায় বাদী আদালতে এ মামলা করেছেন।

যশোরে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতির বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় জিডি
জয় নিউজ প্রতিবেদক:
যশোরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর ও হত্যার হুমকির অভিযোগে রেলগেট রায়পাড়ার আসাদুজ্জামান মিঠুর বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় জিডি করেছেন জেল রোডের সফিকুল ইসলাম সফি।আসাদুজ্জামান মিঠু জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি। অন্যদিকে ভুক্তভোগি সফিকুল ইসলাম সফি জেলা যুবলীগের সদস্য। বুধবার দুপুরে সফি এ জিডি করেন। যার নম্বার-৬৬২।
জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, মিঠুর কাছে বাহাদুরপুর এলাকার ফকরুল ইসলাম বুলবুল টাকা পেতেন। বুলবুল মঙ্গলবার রাতে সফিকে সাথে নিয়ে আসাদুজ্জামান মিঠুর অফিসে ওই পাওনা টাকা আনতে যান। এসময় বুলবুলের সাথে মিঠুর কথাকাটিকাটি হয়। সেসময় ঠেকাতে যান সফি। এরপর মিঠুর সাথে সফির বাকবিতন্ডা বাঁধে। এরপর মিঠু নিজে শফিকে দেখে নেয়াসহ খুন জখমের হুমকি দেয়।
এই ঘটনার জেরে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মিঠুসহ অজ্ঞাত ২০/২৫ জন একাধিক মোটরসাইকেলে করে সফির জেলরোডের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাই ভাই এন্টারপ্রাইজের সামনে যান। দোকান বন্ধ থাকায় দোকানের সার্টারে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। মিঠু এসময় সফির বাড়িঘর পুড়িয়ে ফেলা ও হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যায়। এরপর থেকেই সফি জীবনাশংকায় ভুগছেন বলে জিডিতে উল্লেখ করেন। এ বিষয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু বলেন, সফির সাথে এ ধরণের আচরণ করা হয়নি। এসব অভিযোগ ভীত্তিহীন। তিনি এই বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রকৃত ঘটন উদঘাটনের অনুরোধ জানান।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »