মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১২:৪২ পূর্বাহ্ন

প্রতিনিধি আবশ্যক :
বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা জয় বাংলা নিউজ ডট কম ( www.joibanglanews.com)এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা/থানা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি আবশ্যক। আগ্রহী প্রার্থীদের পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতা ( যদি থাকে) উল্লেখ পূর্বক জীবন বৃত্তান্ত এবং মোবাইল নাম্বার সহ ইমেইলে ( joibanglanews@gmail.com ) আবেদন করতে হবে।
শিরোনাম :
ট্রেনের নিচে ঝাপিয়ে জীবম দিলেন ৪ সন্তানের জননী আগামী ২০ মে থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু অর্থের অপচয়রোধ নিশ্চিত করতে হবে… প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে ভর্তুকি মূল্যে নিত্যপণ্য বিক্রি শুরু করে টিসিবি সমুদ্রে ৬৫ দিন মৎস্য আহরণ বন্ধ সারাদেশে একদিনে আট জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি ভারতে পি কে হালদারের শাস্তি হতে পারে… পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ খাদ্যপণ্যে প্রভাব ফেলেছে…বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বড়াইগ্রামে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে র‍্যাব নাজমুলকে গ্রেফতার যৌতুক দাবি ও নির্যাতনের অভিযোগে আরআরএফ’র কর্মকর্তা সবুজের বিরুদ্ধে যশোর আদালতে মামলা
যশোর নড়াইল সড়কে রাতের আধারে গাছ কেটে সাবাড়

যশোর নড়াইল সড়কে রাতের আধারে গাছ কেটে সাবাড়

জয় বাংলা নিউজ প্রতিবেদক:
যশোর নড়াইল সড়কের ফতেপুর দায়তলার রাস্তার পাশের গাছ রাতের বেলা কেটে সাবাড় করে দেয়া হয়েছে। উপজেলা বন সংরক্ষণ অফিস বলছে টেন্ডারের মাধ্যমে গাছ কাটা হয়েছে। এলাকাবাসীর প্রশ্ন যদি টেন্ডারের মাধ্যমে গাছ কাটবে তাহলে রাতে কাটবে কেন। সরেজমিনে দেখা গেছে দায়তলা হামকুড়া ব্রীজ থেকে চানপাড়া পুলিশ ফাড়ী পর্যন্ত সড়কের ধারের কয়েকশ গাছ কেটে সাবাড় করা হয়েছে। কারা গাছ কাটছে সেটা বলতে পারেনি এলাকাবাসী। কামরুল ইসলাম নামে এলাকাবাসী জানান দিনের বেলায় গাছ কাটতে দেখিনি। হয়তো রাতের বেলা কাটা হয়েছে। দায়তলা বাজারের শরজিৎ নামে এক ব্যবসায়ী বলেন কারা এ গাছগুলো কেটেছে আমার জানা নেই। একই কথা জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন এলাকাবাসী। তারা শুধু গাছের গোড়ারমাটি খুড়ে কাঠ নিতে এসেছে। ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন ও জানেন না কারা, কি কারনে গাছ কেটেছে। বিষয়টি খোজ নিয়ে দেখবেন বলে তিনি জানান। গাছ কাটার বিষয়ে জেলা পরিষদে নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ উজ জামানের কাছে জিজ্ঞেস করলে তিনি জানান কাটা গাছগুলো তাদের না। তাদের গাছের গায়ে জেলা পরিষদ লেখা আছে। সেগুলো হয়তো বন বিভাগের। এ ব্যাপার সদর উপজেলা সহকারী বনকর্মকর্তা অমিতা মন্ডল জানান, যশোর নড়াইল সড়ক পদ্মাসেতুর সাথে সংযুক্ত হবে। একারণে এ সড়ক ফোর লেন করা হবে। ফোর লেন করতে হলে গাছের কারনে সম্ভব হবে না। এজন্য চলতি বছরের ২ জানুয়ারি টেন্ডার আহ্বান করা হয়। ২০জানুয়ারি টেন্ডার ওপেন করে ২৭টি লডে গাছ দেয়া হয়। এর বাইরে কোন গাছ কাটা হয়েছে কি না তিনি বলতে পারেননি। আরো বলেন গাছের টেন্ডার কে পেয়েছে, কত টাকার গাছ, এখন বলতে পারবো না। এঘটনায় এলাবাসি ক্ষুব্ধ ।

 

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »