সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন

যশোরে জনি হত্যা মামলায় ২১ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট

যশোরে জনি হত্যা মামলায় ২১ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর সদরের  নরেন্দ্রপুরে জনি হোসেন হত্যা মামলায় ২১ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্তরা হচ্ছে,  সদরের  চাউলিয়া গ্রামের মৃত মনোয়ার ওরফে মনুর ছেলে শাহিন আলম, হাসেম মোয়াজ্জেমের ছেলে মর্তুজা, আব্দুর শুকুরের ছেলে বাছির, সাবেক মেম্বর আবু খায়েরের নাতি তৌফিক খোকন মিয়ার ছেলে রেজোয়ান, নরেন্দ্রপুর পোস্টঅফিসপাড়ার  নওশের আলী গাজীর ছেলে সবুজ হাসান,একই এলাকার দবির হোসেনের ছেলে সুমন হোসেন,  মোল্যা পাড়ার জালালের ছেলে সাগর হোসেন, ঘোরাগাছা সাহাপাড়া কলেজের পাশের সঞ্জয় পালের ছেলে সুজন কুমার পাল, কচুয়া ঘাটকান্দা গ্রামের রবিউলের ছেলে নয়ন, চাউলিয়া গ্রামের তোফাজ্জেলের ছেলে মুন্না, পূর্বপাড়ার শফিয়ার রহমানের ছেলে হাসান কবীর ওরফে অনিক, ঘোড়াগাছা কলেছের পেছনের গৌর সাহার ছেলে মিলন, সাধন দাসের ছেলে পান্ত, মুনসেফপুর খানপাড়ার তারেক খানের ছেলে সাব্বির হোসেন ওরফে নিশান খান, কচুয়া মোল্লাপাড়ার দাউদ মোল্লার ছেলে আরিফ,চাউলিয়া গ্রামের হাসেমের ছেলে আনাম, পূর্বপাড়ার আজগরের ছেলে তুহিন হোসেন, নরেন্দ্রপুর মোল্লাপাড়ার গোলাম মোস্তফার ছেলে রাসেল, গোপালপুর দফাদরপাড়ার ওয়াজেদ আলীর আল আমিন হোসাইন ও ঘোড়াগাছা কলেছের পেছনের দুলাল সাহার ছেলে সোহাগ। একই সাথে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমান না পাওয়ায়  মামলার এজাহার ভুক্ত চার আসামিকে মামলার দায় থেকে অব্যহতির আবেদন জানানো হয়েছে। তারা হলেন, চাউলিয়া হিন্দুপাড়া গ্রামের বাবুর ছেলে ইমামুল, রুপদিয়া বটতলা এলাকার আলী আকবরের ছেলে আরমান, গোপালপুর তরফদারপাড়ার  ওলিয়ার তরফদারের ছেলে মনিরুল ইসলাম মনির, চাউলিয়া গ্রামের শফিগাজীর ছেলে মুন্না। কোতোয়ালি থানার সাব ইন্সপেক্টর সাইফুল মালেক মামলা তদন্ত শেষে আদালতে এ চার্জশিট জমা দেন।
তদন্তে উঠে আসে অভিযুক্ত আসামিরা এলাকার উঠতি বয়সের সন্ত্রাসী। জনি বিভিন্ন ব্রিকস ফিল্ডে মাটি সরবরাহের  আসামি শাহিন ও মুর্তুজার সাথে নিহত জনির দ্বন্দ শুরু হয়। এরপর তারা জনিকে হত্যার হুমকি দেন। তারই অংশ হিসেবে অন্য আসামিরা একত্রিত হয়ে হত্যার পরিকল্পনা করতে থাকে।গতবছরের ৯ ডিসেম্বর জনি তার মামা বাড়িতে থাকা কালীন অবস্থায় আসামি সুমন ও সাগর মোটরসাইকেলে করে জনিকে নিয়ে যায়। এরপর জনিকে নিয়ে মোল্লাপাড়া হারুন অর রশিদের চায়েল দোকানের সামনে নিয়ে চা খাওয়াতে থাকে।এসময় পূর্বপরিকল্পিত ভাবে অন্য আসামিরা এসে জনিকে মারপিট শুরু করে। পরে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জখম করে।একপর্যায় মুর্তজা,মুন্না, অনিক, নয়ন জনিকে জাপটে ধরে।এসময় বাছির ,তুহিন, রোজোয়ান, তৌফিক সহ অন আসামিরা ঘিরে ধরে। এসময় আসামি শাহীন আলম তার জ্যাকেটের পকেট থেকে ছুরি বের করে বুকের মাঝখানে স্টেপ করে।পরে মাটিতে লুটিয়ে পরে জনি।আশপাশের লোকজনের চিৎকারে সবাই এগিয়ে আসলে আসামিরা সোটকে পরে। ঘটনাস্থলে জনির মৃত্যু হয়।
এ ঘটনায় নিহত জনি হোসেনের পিতা মণিরামপুর উপজেলার ঢাকুরিয়া ইউনিয়নের তারুয়া গ্রামের পশ্চিমপাড়ার সিরাজুল ইসলাম মামলা করেন। মামলায় ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে ২১ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট জমাদেয় পুলিশ। অপর চারজনকে অব্যহতির আবেদন জানানো হয় চার্জশিটে।

 

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »