শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১০:৪৬ পূর্বাহ্ন

যশোরে ১৭ লাখ টাকা ডাকাতি ঘটনায় আরো দুইজন গ্রেফতার

যশোরে ১৭ লাখ টাকা ডাকাতি ঘটনায় আরো দুইজন গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার :যশোর শহরের এমকে রোডস্থ সন্ধ্যানী সুপার মার্কেটের ইউসিবিএল ব্যাংকের বুথের সামনে প্রকাশ্য দিবালোকে উপর্যুপুরী ছুরিকাঘাত করে ১৭ লাখ টাকার ডাকাতির ঘটনার প্রধান আসামি আরাফাতকে ঢাকা থেকে আটক করা হয়েছে। ডাকাত দলের এ যাবত ৭ জনকে গ্রেফতার ও লুটকৃত ৯ লাখ টাকা উদ্ধার করেছে। ৫ অক্টোবর সোমবার দুপুর ২টায় গত ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ২টার পর পর ঘটে যাওয়া ডাকাতির ঘটনাস্থলে যশোর পুলিশের আয়োজিত আইন – শৃঙ্খলা সংক্রান্ত পথসভায় বক্তব্যে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন এ কথা তুলে ধরেন।

তিনি আরো বলেন, শান্তির এই যশোর শহরে কেউ বিশৃংখলা করতে পারবে না। অপরাধ করে কেউ রক্ষা পাবেনা বলে তিনি উচ্চস্বরে বলেন। পুলিশ সুপার আরো বলেন, ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ঠিক ২ টার পরপর প্রকাশ্যে এই স্থানে ( ইউসিবিএল ব্যাংকের সামনে ) থেকে মোটর পার্টস ও ফল ব্যবসায়ী এনামুল হককে ছুরিকাঘাত করে ১৭ লাখ ডাকাতি করে চিহ্নিত দূবৃর্ত্তরা। এসময় ডাকাতেরা বোমা হামলা চালায়। ওই ঘটনার সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজ দেখে পুলিশ প্রথমে ৫ জনকে অক্লান্ত পরিশ্রম করে ঘুম হারাম কওে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। এ সসময় ২ লাখ ৪৮ হাজার ৫শ টাকা উদ্ধার হয়। গ্রেতারকৃতদের আদালতে হাজির করা হলে তারা ডাকাতির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ও ডাকাতির সাথে তাদের সাথে যারা জড়িত তাদের নামও প্রকাশ করে দেয়। ৪ অক্টোবর রোববার বেলা ১১টায় নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার কালনা ফেরিঘাট এলাকা থেকে ডাকাত সদস্য সোহেল শেখ (২৩) কে আটক করা হয়। ৩ অক্টোবর ডাকাতি ঘটনার প্রধান আসামি ইয়াসিন আরাফাতের মা মেহেরুনের কাছ থেকে ছিনতাইকৃত ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। ৪ অক্টোবর ঢাকার আদাবর থেকে ইয়াসির আরাফতকে আটক করা হয়। তার কাছ থেকে ১ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। আটক সোহেল যশোর শহরের ধর্মতলা এলাকার তৈয়ব আলী ওরফে তবিবর রহমানের ছেলে, ইয়াসির আরাফাত ওরফে রাজু মোল্যাপাড়া আমতলা এলাকার লিটন হোসেনের ছেলে। পুলিশ ডাকাতির সময় ব্যবহৃত ধারালো অস্ত্র, মোটরসাইকেলও উদ্ধার করে।

পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন জানান, ডাকাতির বাকি টাকা উদ্ধারের জোর চেষ্টা চলছে। যশোরের মাটিতে সন্ত্রাসীদের কোন স্থান নেই। যশোর জেলা পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে থাকবে। কেউ অপরাধ করে পার পেয়ে যাবে না। অপরাধী যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনতে একটু পিছপা হবেনা পুলিশ সদস্যরা।

আইন শৃঙ্খলা সংক্রান্ত পথা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন সিকদার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) তৌহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) গোলাম রব্বানী, যশোর কোতয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান, যশোর ডিবি পুলিশের ইনচার্জ সোমেন দাস, মামলার তদন্তকারী অফিসার যশোর সদর ফাড়ির ইনচার্র্জ তুষার কান্তি মন্ডলসহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, গত ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ২ টা ৫ মিনিটের সময় শহরের এমকে রোডস্থ সন্ধ্যানী সুপার মার্কেটের দ্বিতীয়তলা ইউসিবিএল ব্যাংকের সামনে বুথের কাছে মটর পার্টস ও ফল ব্যবসায়ী এনামুল হককে চাকু মেরে তার কাছে থাকা ১৭ লাখ টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নেয় দূবৃর্ত্তরা। গুরুতর আহত অবস্থায় এনামুল হককে প্রথমে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে পওে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এনামুল হক যশোর শহরের বকচর এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে। এ ঘটনায় এনামুলের ছোট ভাই ইকবাল হোসেন যশোর কোতয়ালি মডেল থানায় থানায় মামলা করেন। মামলা নম্বর ৮৮।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »