মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন

চতুর্থ দফায় যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি

চতুর্থ দফায় যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি

তৃতীয় দফায় বন্যার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে চতুর্থ দফায় যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি শুরু হয়েছে। এতে বন্যা কবলিত হাজার হাজার মানুষ ঘুরে দাঁড়ানোর আগেই ফের বন্যার কবলে পড়ার আশঙ্কা করছে পানিবন্দিরা।

ফলে আবার নতুন করে পানি বৃদ্ধিতে উপজেলার চরাঞ্চলের অর্ধলাখ মানুষের মধ্যে চরম হতাশা বিরাজ করছে। কর্মহীন হয়ে পড়ার আশঙ্কা করছে এসব এলাকার নি¤œ আয়ের মানুষ। গবাদি পশু ও পরিবার পরিজন নিয়ে তারা নিরাপদ স্থানে যেতে শুরু করেছে। এরআগেরবার বন্যায় নি¤œাঞ্চলের শতাধিক একর জমির বীজতলা ও সবজি বাগান যায়। টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়- গত ২৪ ঘন্টায় যমুনা নদীর পানি ৩ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৬ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়াও ধলেশ্বরী নদীর পানি ৩ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৬৭ সেন্টিমিটার ও ঝিনাই নদীর পানি ২ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার মাত্র ১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তবে বড় ধরণের বন্যার আশঙ্কা নেই। এদিকে, চলতি মৌসুমে এ উপজেলায় রোপা আমন চাষ করতে পারবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। উপজেলার কয়েড়া গ্রামের কৃষক রাশেদ জানান- ‘বন্যার পানি কমার সাথে সাথে নতুন করে প্রথম দফায় বীজতলা ও সবজির বাগান করেছিলাম। তা আগেরবার বন্যায় তলিয়ে পচে যায়। আবার নতুন করে বীজতলা করেছি। এতে করে আবারো  পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বীজতলা ও সবজির বাগান তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছি। উপজেলা কৃষি অফিসার আল মামুন রাসেল বলেন- ‘পানি বৃদ্ধির প্রতি আমরা নজর রাখছি। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের তালিকা এখনো করা হয়নি। তবে সরকারি প্রণোদনা পাওয়া গেলে আমরা কৃষকদের সহযোগিতা প্রদান করা হবে। এছাড়াও কৃষকদের উঁচু জমিতে বীজতলা চারা রোপনের পরামর্শ দিচ্ছি।

জয় বাংলা নিউজ/সস

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »