সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৯:৩৯ পূর্বাহ্ন

ভলতেয়্যার ‘ওগো ভালো মানুষ, এখন শত্রু বানানোর সময় নয়।’

ভলতেয়্যার ‘ওগো ভালো মানুষ, এখন শত্রু বানানোর সময় নয়।’

তার আসল নাম ফ্রাঁসোয়া-মারি আরুয়ে। কিন্তু এই নামে তাকে কেউ চেনে না। আবার যে নামে চেনে সেটি তার আসল নাম নয় মোটেই। সেটি তার ছদ্মনাম। পৃথিবীর ইতিহাসে তিনি ভলতেয়্যার নামে সবার কাছে পরিচিত। তিনি রেনেসাঁর সময় আবির্ভূত বিশ্বের অন্যতম সেরা পণ্ডিত ছিলেন। লেখক, প্রাবন্ধিক এবং দার্শনিক হিসেবে তার সময়ে তো বটেই এখনো ইতিহাসের অন্যতম সেরা একজন মানা হয় তাকে। তার সব গুণাবলি ছাপিয়ে গিয়েছিল বাকচাতুর্য এবং দার্শনিক ছলাকলা। যুক্তিতর্কের লড়াইয়ে তাকে হারানো ছিল কঠিনতম কাজ। তিনি নাগরিক স্বাধীনতার স্বপক্ষে, বিশেষত ধর্মের স্বাধীনতা ও ন্যায়বিচারের অধিকারের পক্ষে অবস্থান নেওয়ার জন্য সবচেয়ে বিখ্যাত ছিলেন। তার সময়ের ফ্রান্স ছিল রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয়ভাবে দারুণ গোঁড়া। তিনি সেইসব কঠোর গোঁড়ামি উপেক্ষা করে সামাজিক সংস্কারের অন্যতম প্রবক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। শুধু তাই নয় সব রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে খ্রিস্টান গির্জা ও তত্কালীন ফরাসি সামাজিক আচারকে ব্যঙ্গবিদ্রূপ করতেও ছাড়েননি তিনি। ভলতেয়্যারের জন্ম ১৬৯৪ সালের ২১ নভেম্বর। আর ১৭৭৮ সালের ৩০ মে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালীন সময়ে ভলতেয়্যারের শেষ ইচ্ছা জানতে চাওয়া হলেও তিনি কিছুই বলেননি। আর নাস্তিক হওয়ার কারণে ঈশ্বরের নামও নেননি। তার মৃত্যু যখন সময়ের ব্যাপার মাত্র, সেই সময় পাদ্রি ভলতেয়্যারকে শেষবারের মতো অনুরোধ করেন তিনি যেন ঈশ্বরে বিশ্বাস আনেন। সেই সঙ্গে ক্ষমা চেয়ে নিজেকে যেন ঈশ্বরের কাছে সমর্পণ করেন। কিন্তু ভলতেয়্যার তখনো নিজের দর্শনে অটল। পাদ্রিকে লক্ষ্য করে স্মিত হেসে ভলতেয়্যার বললেন—‘ওগো ভালো মানুষ, এখন শত্রু বানানোর সময় নয়।’ অর্থাত্ ঈশ্বরে বিশ্বাস এনে তিনি শত্রু বানাতে চান না! সুত্র:বাংলাদেশ প্রতিদিন

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা নিষেধ।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Translate »