শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ১০:১৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
যে শয় সে রয়, যে শয়না, সে রয়না এ প্রবাদ বাক্যটির রুপ দিয়েছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা যমেকের ২৫ কর্মচারীর চাকরি ফিরে পাওয়ার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন যশোর সদরে জাসদের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে আওয়ামী লীগের নেতারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল-অ্যাডভোকেট রবিউল আলম বিএসপির সভাপতি অধ্যাপক সামসুজ্জামানের ৬৯তম জন্মদিন কবিতাঃ অবেদ্য নওগাঁর আত্রাইয়ে ৫ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে রিপ্রেজেন্টিটিভদের মানববন্ধন বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতি যশোর জেলা শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত যশোরে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে সনি র‌্যাংসের এক কর্মকর্তার মৃত্যু সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শাহিদুজ্জামান চিরবিদায় বিভিন্ন সংগঠনের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা
আর আদালতে হাজিরা দিতে হবে না নওশাবাকে

আর আদালতে হাজিরা দিতে হবে না নওশাবাকে

জয় ডেক্স: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে দায়ের করা মামলায় অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৮ মে নতুন দিন ধার্য করেছেন আদালত। একইসঙ্গে আইনজীবী তার হাজিরা দিলেই চলবে বলে নির্দেশ দিয়েছেন।
গত বুধবার ওই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার দিন ধার্য ছিলো। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রতিবেদন না দেওয়ায় মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ দিদার হোসেন নতুন দিন নির্ধারণ করেন।
কাজী নওশাবা আহমেদের আইনজীবী ফৌজদারী কার্যবিধির ২০৫ ধারায় নওশাবার অনুপস্থিতিতে আইনজীবীর মাধ্যমে হাজিরা দেওয়ার অনুমতি চাইলে আদালত তা মঞ্জুর করেন। আগামী তারিখ থেকে নওশাবাকে আদালতে আর হাজিরা দিতে হবে না।
গত ১৫ জানুয়ারি নওশাবার উপস্থিতিতে আইনজীবী ইমরুল কাওসার স্থায়ী জামিন চেয়ে শুনানি করেন। শুনানি শেষে নওশাবার স্থায়ী জামিন আবেদন মঞ্জুর এবং একই সঙ্গে এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য গত ৩ মার্চ দিন ধার্য করেছিলেন আদালত।
রাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন চলাকালে ২০১৮ সালের ৪ আগস্ট ফেসবুক লাইভে আসেন নওশাবা। ফেসবুক লাইভে তিনি বলেন, “জিগাতলায় চারজনকে মেরে ফেলা হয়েছে, একজনের চোখ উপড়ে ফেলা হয়েছে।”
সেই সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়, ওইদিন জিগাতলায় এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি।
পরে গুজব সৃষ্টির অভিযোগে ওইদিন রাতেই উত্তরা থেকে নওশাবা আহমেদকে আটক করে র‌্যাব। এর পর দিন ৫ আগস্ট র‌্যাব-১ এর কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম বাদী হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় নওশাবার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। তারপর তথ্যপ্রযুক্তি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়।
৫ আগস্ট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাজহারুল হক তাকে চারদিনের পুলিশ রিমান্ডের আদেশ দেন। প্রথম দফায় রিমান্ড শেষে ১০ আগস্ট আবারও নওশাবাকে দুই দিনের পুলিশ রিমান্ডের আদেশ দেন একই অদালত। এরপর ২০১৮ সালের ২১ আগস্ট পাঁচ হাজার টাকা মুচলেকায় নওশাবা সিএমএম আদালতে জামিনে মুক্তি পান।

 

 

 

 

 

সুত্র:সকালের সময়

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com