বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন

করনীয়:
করোনা প্রতিরোধে সচেতন হই। ঘন ঘন সাবান দিয়ে হাত ধুই। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হই।
শিরোনাম :
যশোর ঝুমঝুমপুরে ২ শতাধিক কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ হিলিতে ৭শ শ্রমিকের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করলেন এমপি শিবলী সাদিক অসহায় মানুষদের খোঁজ খবর নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সহায়তা শিবলী সাদিক এমপি দিনাজপুর জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে খাদ্য বিতরন চীনে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত মঈনের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম ময়মনসিংহে ঘাতক ট্রাক কেড়ে নিল দুইজনের প্রাণ করোনায় মৃতের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্র পুতিনের সঙ্গে হাত মেলানোর পর রুশ চিকিৎসকের করোনা শনাক্ত অর্ধশতাধিক ছিন্নমূলমানুষের তিন বেলা ক্ষুধার জ্বালা মেটাচ্ছেন রাজা নড়াইলে বমি-শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর যুবকের মৃত্যু
যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসক,সেবিকাদের করোনার জন্য সেফটির কোনো ব্যবস্থা নাই

যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসক,সেবিকাদের করোনার জন্য সেফটির কোনো ব্যবস্থা নাই

স্টাফ রিপোর্টার: যশোর জেনালের হাসপাতালে একাধিক চিকিৎসক,সেবিকা,কর্মচারিরা অভিযোগ করে বলেন সারা বিশ্ব সহ আমাদের দেশেও করোনা ভাইরাস একটি মহামারি আকার ধারন করছে। কার করোনা রোগ আছে সেটা আমাদের বোঝার কোন উপাই নাই৷ তাই সকল মানুষ আতঙ্কে আছে৷ আমরা যারা চিকিৎসক সেবিকা,কর্মচারি আমাদের সেফটির জন্য হাসপাতালে তেমন কোন ব্যাবস্থা নেই৷ শুধু মাস্ক ব্যাবহার করে আমাদের হাসপাতালে অন্য রোগীদের  চিকিৎসা সেবা দিতে হচ্ছে৷ নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন চিকিৎসক জানান,যদিও হাঁচি,কাশি,জ্বরের রোগী দেখার জন্য আলাদা করে একটা রুম নির্ধারন করা হয়েছে,কিন্তু তারপরও কোন রোগীর ভিতর করোনা ভাইরাস আছে সেটাও আমরা বুঝতে পারছি না৷ যেমন শনিবার সকালে হাসপাতালে একজন পুলিশ সদস্য চিকিৎসার জন্য এসেছিলো পরে ওই পুলিশ সদস্যকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে৷ এইজন্য আমরা দাবি জানাচ্ছি যে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং জেলা প্রশাসন অতি দ্রুত সকল চিকিৎসক,সেবিকা,কর্মচারিদের সেফটির ব্যাবস্থা করার অনুরোধ জানান তারা৷ জানতে চাইলে হাসপাতালের তত্বাধায়ক ডাক্তার দীলিপ কুমার রায় বলেন বর্হি বিভাগে ও জরুরী বিভাগে সেফটির জন্য সব রকমের ব্যাবস্থা নেওয়া আছে,শুধু অন্যন্য ভর্তি রোগী যে সকল ওয়ার্ডে আছে শুধু সেখানে কোন সেফটির ব্যাবস্থা নেওয়া হয়নি৷ কারন করোনা রোগী যখন সনাক্ত হবে তখন আইসোলেসনে নেওয়া হবে৷ আইসোলেশনে যে সকল চিকিৎসক সেবিকা,কর্মচারী ডিউটি করবে তাদের জন্য আলাদা ভাবে সেফটির ব্যাবস্থা করা আছে৷ বর্হি বিভাগে হাঁচি,কাশি,জ্বরের জন্য আলাদা চিকিৎসক আছে,আলাদা জায়গা নির্ধারন করা হয়েছে৷

খবরটি শেয়ার করুন..




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com