বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন

যশোরে বিউটি পার্লারের অন্তরালে দেহ ও মাদক ব্যবসা – পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ

যশোরে বিউটি পার্লারের অন্তরালে দেহ ও মাদক ব্যবসা – পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর শহরের কারবালা এলাকায় নাইট কুইন বিউটি পার্লারের মালিক নাজমার বিরুদ্ধে পার্লারের নামে দেহব্যবসা ও ইয়াবা বিক্রির অভিযোগ করেছে এলাকার সচেতন মহল। সমাজের আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে রাখতে ৫০ জনের স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ দিয়েছে। বুধবার সকালে এলাকাবাসি পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনের কাছে অভিযোগ দিলে বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের আশ^াস দিয়েছে পুলিশ সুপার।
অভিযোগে জানাযায়, বিউটিশিয়ান নাজমা দীর্ঘদিন ধরে বিউটি পার্লার ব্যবসার আড়ালে বিভিন্ন এলাকার স্কুল কলেজ পড়–য়া মেয়েদের দিয়ে দেহব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। সেই সাথে আছে তার মাদক ব্যবসাও। তার পার্লারে চলে ইয়াবা বিক্রি ও সেবনের আড্ডা। নাজমার সাহায্যকারি হিসাবে আসেন বাড়ির মালিক আজিজুল ইসলাম । এর আগে আজিজুল ইসলাম নাজমার বাসা থেকে ইয়াবা ও কলগার্লসহ পুলিশের হাতে আটক হন। বেশ কয়েক মাস কারাভোগ শেষে জামিনে মুক্তি পেয়ে আবারো সে মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে। নাজমার কাছে প্রায় ১০ থেকে ১২ জন মেয়ে বসবাস করে। তারা বিভিন্ন কলেজে লেখাপড়া করে। তাদের মধ্যে চৌগ্ছাার আলফাতুন্নেছা অনু, মহেশপুরের ডালিয়া, বেনাপোলের আখি, ঝিকরগাছার বৃষ্টি, চুয়াডাঙ্গার তানিয়া, কোটচাদপুরের শাহনাজ, বেজপাড়ার ইতি, ঝুমঝুমপুরের পিয়া, নওয়াপাড়ার সুমি, হামিদপুরের সানজিদা অন্যতম।
এলাকাবাসি অভিযোগ করেন, পার্লার ব্যবসা নাজমার লোক দেখানো। যশোর শহরসহ আশপাশের এলাকায় খরিদ্দার ঠিক করে তাদের কাছে এসব মেয়েদের পাঠানো এবং ইয়াবা ব্যবসা করা নাজমার মুল উদ্দেশ্য। মেয়েরা তাদের বান্ধবীদের আয়ের উৎস দেখিয়ে নাজমার কাছে নিয়ে আসে। আর নাজমা তাদের মোটা অংকের টাকার লোভ দেখিয়ে এ পথে নামিয়ে দেয়। এভাবেই সহজ সরল মেয়ে অপরাধ জগতে পা রাখছে। এব্যাপারে এলাকাবাসি অনেকবার বাড়ির মালিক আজিজুল ইসলাম ও নাজমাকে নিষেধ করা সত্বেও তাদের কার্যকলাপ চালিয়ে যাচেছ। এলাকার পরিবেশ এমন হয়েছে যে পরিবার পরিজন নিয়ে মানসম্মানের সাথে বসবাস করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন..




© All rights reserved  2019 Joibanglanews.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com